nav-left cat-right
cat-right

Alopathic Treatment Software

আলহামদুলিল্লাহ। এলোপ্যাথিক সর্টকোর্সধারী চিকিৎসকদের (সার্টিফিকেট ইন প্যারামেডিকেল, কমিউনিটি প্যারামেডিকেল, LMAF , LMAFP , VD, MCH , ডিপ্লোমা ইন মেডিকেল এসিস্ট্যান্ট – DMA, ডিপ্লোমা ইন মেডিকেল সাইন্স DMS , ডিপ্লোমা ইন মেডিসিন এন্ড সার্জারি DMS ) অনুরোধে বাংলা ভাষায় এলোপ্যাথিক চিকিৎসা বিষয়ক সফটওয়ারের কাজ অনেক দূর এগিয়ে গেছে। সফটওয়ারটিতে দুইটি ভার্সান থাকবে- (১) ফ্রি ভার্সান ও (২) প্রিমিয়াম ভার্সান ফ্রি ভার্সানটি তৈরীর কাজ শেষ হয়েছে। প্রিমিয়াম ভার্সানের কাজটি চলমান রয়েছে। Alopathic Treatment Software এ যা থাকছে- সকল অঙ্গের নামসহ ছবি রোগী পরীক্ষার বিভিন্ন পদ্ধতি প্রেসক্রিপশন লেখার পদ্ধতি বিভিন্ন ইনজেকশনের প্রয়োগবিধি চিকিৎসায় ব্যবহৃত যন্ত্রপাতির বর্ণনা ঔষধের মাত্রা, প্রয়োগবিধি ও রিপোর্টের ব্যাখ্যা চিকিৎসা বিষয়ক নানা প্রবন্ধ ও সর্ট কোর্স পরিচিতি বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের চিকিৎসার পরিধি বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা ও ব্যবস্থাপনা বিভিন্ন ঔষধের পরিচিতি ও ব্যবহার প্যাথোলজিকাল রিপোর্ট থেকে রোগ নির্ণয় কেস টেকিং করে ঔষধ নির্বাচন ও প্রেসক্রিপশন তৈরী যে কোন ভার্সান পেতে হলে নিম্নের লিঙ্কে ক্লিক করে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। https://hikmasoft.net/alopathy/registration.php...

হোমিও বাংলা সফটওয়ারের সকল তথ্য এখন এক পেজে...

হোমিও বাংলা সফটওয়ারের সকল তথ্য জানতে নিচের লিঙ্কে ক্লিক করুন:   http://www.mokhlesbd.com/hbs/index.html  

হোমিও বাংলা সফটওয়ারের আপডেট ভার্সান ১৮.০২ প্রকাশ করা হয়েছে...

হোমিও বাংলা সফটওয়ারের আপডেট ভার্সান ১৮.০২ প্রকাশ করা হয়েছে: ১. কেন্টের রেপার্টরিতে ব্যাপক পরিবর্তন আনা হয়েছে। ১৮.০২ ভার্সানে কেন্টের রেপার্টরিতে প্রায় সত্তর হাজার (69,418) টি লক্ষণ স্থান পেয়েছে। লক্ষণগুলি প্রথম গ্রেড, দ্বিতীয় গ্রেড ও তৃতীয় গ্রেডে বিভক্ত; যাদের মান যথাক্রমে ৩, ২ এবং ১। এক কথায় কেন্টের রেপার্টরির সকল গ্রেডের সকল লক্ষণ ও সকল ঔষধ স্থান পেয়েছে। ২. সাধারণ লক্ষণ অধ্যায়টি আলাদাভাবে বিভিন্ন ভাগে বিন্যস্ত করা হয়েছে; এখান থেকে সহজেই সার্বদৈহিক লক্ষণ নির্বাচন করা যাবে। ৩. কেন্টের বাংলা রেপার্টরি পেজে অবস্থান করে অন্যান্য নামক বাটন ব্যবহার সহজেই সার্বদৈহিক লক্ষণসহ ধাতুপ্রকৃতি, মায়াজমঘটিত ও কারণঘটিত লক্ষণ ও ঔষধ বের করা যাবে। ৪. একটি নির্দিষ্ট রোগলক্ষণকে আবশ্যিকভাবে রেখে অন্যান্য আনুষঙ্গিক লক্ষণ নিয়ে সহজেই উক্ত রোগের ঔষধ নির্বাচন করা যাবে। ৫. প্রাকটিস অব মেডিসিন এবং কেন্ট ও বোরিকের রেপার্টরির যৌথ সমন্বয়ে সহজ রেপার্টরিকরণ নামে একটি নতুন পেজ তৈরী করা হয়েছে। এই পেজ ব্যবহার করে একই সঙ্গে প্রাকটিস অব মেডিসিন থেকে যে কোন রোগের চিকিৎসা জানা যাবে এবং রেপার্টরিকরণে ক্লিক করে সেই রোগটি কেন্ট ও বোরিকের রেপা্র্টরিতে কোন কোন লক্ষণ নিয়ে আছে তা জানা যাবে ও সেই লক্ষণ নির্বাচন করা যাবে। এখন থেকে কেন্ট ও বোরিকের রেপার্টরি থেকে আলাদাভাবে লক্ষণ সার্স করার প্রয়োজন হবে না। যে কোন রোগের নাম একবার টাইপ করে তা একই সময়ে প্রাকটিস অব মেডিসিন এবং কেন্ট ও বোরিকের রেপার্টরি থেকে খুজে বের করা যাবে। আপডেট ভার্সানটি নেট থেকে ডাউনলোডের কোন ব্যবস্থা রাখা হয়নি। সফটওয়ার ব্যবহারকারীগণকে নতুন ডিস্ক সংগ্রহ করতে হবে। ডিস্কের খরচ, কুরিয়ার খরচ ও সার্ভিস চার্জসহ ৩০০ টাকা বিকাশ করে TrxID সহ সফটওয়ার পাওয়ার ঠিকানাটা ০১৭১৭০০৫১৪০ নাম্বারে এসএমএস করতে হবে। এছাড়া সন্ধ্যা ৬ টা থেকে রাত ৯ টার মধ্যে সরাসরি ফোন করা যাবে। আপডেট ভার্সান ইনস্টলের নিয়ম সিডির সাথে পাঠানো হবে। আপডেট ভার্সান ১৮.০২ ব্যবহারে সতর্কবাতা ১৮.০২ ভার্সানে 3REPERTORY.mdb নামক ডাটাবেজ ফাইলে কাঠামোগত পরিবর্তন আনা হয়েছে। ১৮.০২ ভার্সান ব্যবহার করতে হলে এই ফাইলটি প্রয়োজন। আপডেট ভার্সান ইনস্টল করলে এই ফাইলটি আপনার কম্পিউটারে রক্ষিত 3REPERTORY.mdb ফাইলটির সাথে রিপ্লেসমেন্ট হবে। আপনার পূর্বের ডাটাবেজ ফাইলটি মুছে সেখানে নতুন ডাটাবেজ ফাইলটি বসবে। সোজা কথায়, ১৮.০২ ভার্সান ব্যবহার করলে সফটওয়ারে আপনার রোগীর নামে জমাকৃত কোন লক্ষণ থাকবে না। সবকিছু নতুন করে করতে হবে। তবে একটি কৌশল অবলম্বন করলে সবকিছু অক্ষুন্ন রেখে একই সাথে পূর্বের ভার্সান এবং বর্তমান আপডেট ভার্সান ১৮.০২ ব্যবহার করতে পারবেন। সেটা হলো- পূরবের ভার্সানটি D ড্রাইভের Homeo Bangla Software1 নামক ফোল্ডারে রাখবেন এবং নতুন ভার্সানটি D ড্রাইভের Homeo Bangla Software নামক ফোল্ডারে রাখবেন (সরাসরি এই ফোল্ডারে ইনস্টল হবে)। যখন যে ভার্সানটি ব্যবহার করতে চাইবেন তখন সে ভার্সানের ফোল্ডারের নাম Homeo Bangla Software রাখতে হবে। আর আপডেট ভার্সান ইনস্টলের আগে অবশ্যই পূর্বের ভার্সানটি Homeo Bangla Software1 নামক ফোল্ডারে রাখতে হবে(রিনেম করে)। কাজেই অপ্রয়োজনে আপডেট পরিহার করুন। বিভিন্ন ভার্সানের বিবর্তন দেখতে এখানে ক্লিক...

Online Credit Management System

এই সফটওয়ারটি তৈরী করা হয়েছে মূলত: ছোট ছোট আর্থিক প্রতিষ্ঠানের (বিভিন্ন সমবায় সমিতি/এনজিও/বীমা) সদস্যদের তথ্য সংরক্ষণ ও আর্থিক ব্যবস্থাপনার কাজ সহজ ও সাবলিল করার জন্য। এই সফটওয়ারের প্রধান বৈশিষ্ট্য হচ্ছে:- এই সফটওয়ারের মাধ্যমে সহজেই কোন আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সকল কর্মকর্তা, কর্মচারী ও সদস্যদের ছবি সহ সকল প্রয়োজনীয় তথ্য সংরক্ষণ (Save), সংযোজন(Add), বিয়োজন(Delete), সম্পাদনা (Edit) ও তল্লাশি (Search) করা যায়। প্রতিষ্ঠানের সকল ধরণের খরচ খাতওয়ারী, তারিখ অনুযায়ী, যে কোন শাখার যে কোন কর্মীর আওতায় যে কোন সদস্যের নামে প্রয়োজনীয় তথ্যসহ এন্টি করা যায়। এছাড়া সংরক্ষিত তথ্য মোছা, সংশোধন, শাখাওয়ারী/মাসওয়ারী/বছর ওয়ারী মোট খরচ বের করা, কোন কর্মী/সদস্যের আওতায় কত খরচ তা জানা যায়, মাস বা বছর ওয়ারী যে কোন খরচের তথ্য রিপোর্ট আকারে প্রিন্ট করা যায়। প্রতিষ্ঠানের সকল ধরণের আয় খাতওয়ারী, তারিখ অনুযায়ী, যে কোন শাখার যে কোন কর্মীর আওতায় যে কোন সদস্যের নামে প্রয়োজনীয় তথ্যসহ এন্টি করা যায়। এছাড়া সংরক্ষিত তথ্য মোছা, সংশোধন, শাখাওয়ারী/মাসওয়ারী/বছর ওয়ারী মোট আয় বের করা, কোন কর্মী/সদস্যের আওতায় কত জমা হল তা জানা যায়, মাস বা বছর ওয়ারী যে কোন আয়ের তথ্য রিপোর্ট আকারে প্রিন্ট করা যায়। এই সফটওয়ারের মাধ্যমে সহজেই যে কোন শাখার সকল তথ্য (ম্যানেজারের তথ্য, সকল কর্মী, সদস্য, মোট আয়, মোট খরচ প্রভৃতি) জানা যায়। বিনিয়োগ সংক্রান্ত সকল তথ্য (কবে, কাকে, কোন খাতে, কত টাকা বিনিয়োগ করা হয়েছে, গ্রহিতার ছবিসহ স্বাক্ষর, গ্যারান্টারের ছবিসহ স্বাক্ষর, কত কিস্তিতে, কত লাভে, কত দিনের মধ্যে টাকা পরিশোধ করতে হবে ইত্যাদি) এই সফটওয়ারের মাধ্যমে সহজেই ব্যবস্থাপনা করা যায়। সফটওয়ারটির নমুনা দেখুন: https://hikmasoft.net/ যোগাযোগঃ মোঃ মোখলেছুর রহমান মোবাইল নং: +৮৮ ০১৭১৭০০৫১৪০...

ক্লাস মনিটরিং সফটওয়ার...

এই সফটওয়ার ব্যবহার করে যে কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ক্লাস মনিটরিং করা যাবে। এই সফটওয়ার ব্যবহার করতে হলে অফিসপ্রধানের কক্ষে (হেডমাষ্টার, সুপারিনটেনডেন্ট বা অধ্যক্ষ মহোদয়ের) টেবিলের উপর একটি ল্যাপটপ থাকবে। ল্যাপটপে সফটওয়ারটি ইনস্টল করার পর প্রতিষ্ঠানের কিছু তথ্য এবং ক্লাস রুটিনের সকল তথ্য (কি বারে, কোন সময়, কোন শিক্ষকের, কত নং কক্ষে, কোন ক্লাস) সফটওয়ারের নির্ধারিত ফর্মে ইনপুট করতে হবে। এর পর সফটওয়ারটি পূনরায় চালু করলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ল্যাপটপের স্ক্রিনে সেই সময়ে কোন কোন শিক্ষকের কোন কোন কক্ষে কোন কোন ক্লাস তা দেখাবে। এখানে রুটিন দেখে বার, সময়, শ্রেণী জানার প্রয়োজন হবে না। সফটওয়ারের মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বার, সময় পরিবর্তন হয়ে যাবে এবং সেই সময়ের তথ্য দেখাবে। এছাড়া এই সফটওয়ার ব্যবহার করে রুটিন সংক্রান্ত বিভিন্ন তথ্য সার্স করা যাবে। যেমন: সকাল ৯ টায় কোন কোন ক্লাস, ইতিহাস ১ম বর্ষের ক্লাস সপ্তাহে কোন কোন দিন, রফিক সাহেবের সপ্তাহে কতটি ক্লাস, রবিবারে মিজান সাহেবের কোন ক্লাস আছে কি-না, আজ একাদশ মানবিকে ১১ টায় কি ক্লাস ইত্যাদি তথ্য সহজেই খুজে বের করা যাবে। সফটওয়ারটি নিচের লিঙ্ক থেকে ফ্রি ডাউনলোড করা...

কুরানিক বাংলা সফটওয়ার...

# এই সফটওয়ারের মাধ্যমে বাংলা অর্থসহ সমগ্র কুরআন আরবীতে পড়া যাবে। # কুরআনের বিষয়ভিত্তিক যে কোন আয়াতকে মুহূর্তেই খুজে বের করা যাবে। # যে কোন আয়াত পড়ার সময় সেটি কোন সুরার, কত নং আয়াত, কত পারায়, মাক্কী/মাদানী, নাজিলের সময়ক্রম জানা যাবে। # কুরআনের যে কোন বিশেষ আয়াতের তেলায়াত ইচ্ছামত বার বার আরবীতে শোনা যাবে। # বিষয়ভিত্তিক যে কোন আয়াত খোজার জন্য রয়েছে শত শত নমুনা শব্দ। সেই শব্দে ক্লিক করলেই সমগ্র কুরআন সার্স করে সংশ্লিষ্ট সকল আয়াত চলে আসবে। # আয়াতের ফন্টের আকার ইচ্ছামত ছোট/বড় করার ব্যবস্থা আছে; যাতে করে স্বল্পদৃষ্টিসম্পন্ন ব্যক্তিগণও অনায়াসে বাংলা অর্থ পড়তে পারবেন। # এই সফটওয়ারটিতে কুরআন গবেষকদের জন্য উত্তম ব্যবস্থা আছে। যে কোন বিষয়ভিত্তিক সকল আয়াত সংরক্ষণ করে তা পরবর্তিতে গবেষণার কাজে ব্যবহার করা যাবে। নির্বাচিত সকল আয়াতেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে সুরার নাম ও আয়াত নং চলে আসবে।   সফটওয়ারটি নিচের লিঙ্ক থেকে বিনামূল্যে ডাউনলোড করা যাবে। কিন্ত সফটওয়ারটির অডিও ফাইলের আকার অনেক বড় হওয়ায় কেবল ৩০ তম পারার তেলায়াতগুলি ওয়েবসাইটে দেয়া হল। এখানে তেলায়াত ছাড়া সকল কাজই করা যাবে। ডাউনলোড লিঙ্ক:   সফটওয়ারটির সকল আয়াতের তেলায়াত শুনতে হলে নিম্ন ঠিকানা হতে সিডি সংগ্রহ করতে হবে। সিডিটি যে কোন কম্পিউটারে ইনস্টল করা যাবে। কোন পাসওয়াডের প্রয়োজন নেই। কুরিয়ার খরচসহ সিডির মূল্য বাংলাদেশের জন্য: ২৫০ টাকা মাত্র। যোগাযোগের ঠিকানা: মো: মোখলেছুর রহমান মোবাইল: +৮৮...